শনিবার, ১৯ অক্টোবর ২০১৯, ০২:৫০ পূর্বাহ্ন


Bd-Times

অর্থনীতি

  Print  

আদায় অযোগ্য ৮৪% খেলাপি ঋণ

   


টাইমস ডেস্ক | প্রকাশিত: ০৯:৫১ পিএম, বুধবার, ০২ - জানুয়ারী - ২০১৯



আদায় অযোগ্য ঋণকে ব্যাংকিংয়ের ভাষায় মন্দ ঋণ বা কু-ঋণ বলে। এই মন্দ ঋণের ভারে জর্জরিত দেশের ব্যাংকিং খাত। বাংলাদেশ ব্যাংকের সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, মন্দ  ঋণের পরিমাণ ৮২ হাজার ৬৩৫ কোটি টাকা, যা মোট খেলাপি ঋণের প্রায় ৮৪ শতাংশ। এর সঙ্গে ব্যাংকের মূল হিসাব থেকে আলাদা করে রাখা মন্দ ঋণ অবলোপন আছে আরও প্রায় ৩৫ হাজার কোটি টাকা। এর বাইরে উচ্চ আদালত থেকে স্থগিতাদেশ নেওয়ার কারণে আরও এক লাখ ৫৫ হাজার কোটি টাকার খেলাপি ঋণ আদায় করতে পারছে না ব্যাংকগুলো। এছাড়া, খেলাপি ঋণ পুনঃতফসিল হয়েছে আরও প্রায় এক লাখ কোটি টাকা। পুনঃতফসিল হওয়ায় ব্যাংকগুলো বছরের পর বছর ঋণের অর্থ আদায় করতে পারছে না।


এ প্রসঙ্গে বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর ড. সালেহউদ্দিন আহমেদ বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘মন্দ ঋণ ব্যাংকের জন্য দুঃসংবাদ। অথচ ব্যাংকগুলোতে অব্যাহতভাবে বাড়ছে এই ঋণ। এই ঋণের বিপরীতে ব্যাংকগুলোকে শতভাগ প্রভিশন রাখতে হয়।’


তিনি বলেন, ‘টাকা ফেরত না দেওয়ার যে সংস্কৃতি গড়ে উঠেছে, তা থেকে বেরিয়ে আসতে হবে। এক্ষেত্রে কেন্দ্রীয় ব্যাংককে আরও দায়িত্বশীল হতে হবে।’


ব্যাংক কর্মকর্তারা বলছেন, খেলাপি ঋণ বাড়লে ব্যাংকের মুনাফা কমে যায়। কিন্তু ঋণখেলাপিরা প্রভাবশালী হওয়ার কারণে তাদের কাছ থেকে ঋণের টাকা আদায় করতে পারছেন না ব্যাংকাররা। ফলে বাধ্য হয়ে ডাউন পেমেন্ট না নিয়েই তাদের ঋণ নিয়মিত দেখানো হচ্ছে। আবার কখনও কখনও ঋণের বিপরীতে দেওয়া জামানতের মূল্য বাড়িয়ে তা সমন্বয় করা হয়। এমনিভাবে ২০১৮ সালের শেষ দিকে এসে মুনাফার প্রবৃদ্ধি ধরে রাখতে নানা কৌশলে খেলাপি ঋণ কমানোর অভিযোগ উঠেছে বেশ কয়েকটি ব্যাংকের বিরুদ্ধে।


বাংলাদেশ ব্যাংকের তথ্য অনুযায়ী, দেশে প্রথমবারের মতো অবলোপন ছাড়াই গত সেপ্টেম্বর  মাসের শেষে ব্যাংক খাতের খেলাপি ঋণের পরিমাণ এক লাখ কোটি টাকায় পৌঁছেছে। আর গত ৯ মাসে এই খেলাপি ঋণ বেড়েছে ২৫ হাজার ৬৭ কোটি টাকা।


২০১১ সালের শেষে দেশের ব্যাংকিং খাতে খেলাপি ঋণের পরিমাণ ছিল ২২ হাজার ৬৪৪ কোটি টাকা। ২০১২ সাল শেষে খেলাপি ঋণের পরিমাণ দাঁড়ায় ৪২ হাজার ৭২৫ কোটি ৬১ লাখ টাকা। ২০১৩ সালের সেপ্টেম্বরে খেলাপি ঋণের পরিমাণ ছিল ৫৬ হাজার ৭২০ কোটি টাকা।   এর ৫ বছর পর ২০১৮ সালের সেপ্টেম্বর পর্যন্ত খেলাপি ঋণের পরিমাণ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৯৯ হাজার ৩৭০ কোটি টাকা। এর মধ্যে মন্দ ঋণই রয়েছে ৮২ হাজার ৬৩৫ কোটি টাকা।


নিয়ম অনুযায়ী, গ্রাহকের আমানত সুরক্ষায় ব্যাংকগুলোকে মন্দ বা কু-ঋণের বিপরীতে শতভাগ প্রভিশন রাখতে হয়, যাকে ব্যাংকিং ভাষায় জেনারেল প্রভিশন বা সাধারণ নিরাপত্তা সঞ্চিতি বলা হয়। সন্দেহজনক খেলাপির বিপরীতে রাখতে হয় ৫০ শতাংশ প্রভিশন। নিম্নমানের খেলাপি হলে তার বিপরীতে ২০ শতাংশ এবং বিতরণ করা সাধারণ ঋণের বিপরীতে ০.৫ শতাংশ থেকে ক্ষেত্রবিশেষে ৫ শতাংশ পর্যন্ত অর্থ জমা রাখতে হয়।


কেন্দ্রীয় ব্যাংকের তথ্য অনুযায়ী, অর্থ সংকটের কারণে খেলাপির বিপরীতে মান অনুযায়ী প্রভিশন রাখতে পারছে না সরকারি-বেসরকারি ১২টি বাণিজ্যিক ব্যাংক। এই তালিকায় সরকারি খাতের চারটি ও বেসরকারি খাতের আটটি ব্যাংকের নাম রয়েছে।


সংশ্লিষ্টরা বলছেন, প্রভিশন ঘাটতির কারণে শুধু ব্যাংকই যে বিপাকে পড়ছে তা নয়, আমানতকারী ও শেয়ার হোল্ডারদের জন্যও বিপদ। সাধারণত কোনও ব্যাংকের প্রভিশন ঘাটতি দেখা দিলে মূলধনেও টান পড়ে। আর মূলধন ঘাটতিতে পড়লে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নিয়মানুযায়ী ওই ব্যাংক বছর শেষে সাধারণ শেয়ার হোল্ডারদের লভ্যাংশও দিতে পারে না।


এর আগে গত ১৯ ডিসেম্বর বাংলাদেশ ব্যাংকে অনুষ্ঠিত ব্যাংকার্স সভায় খেলাপি ঋণের উচ্চ হার কমানোর নির্দেশ দিয়েছেন বাংলাদেশ ব্যাংক গভর্নর ফজলে কবির। ওই সভায় খেলাপি ঋণ ১০ শতাংশের নিচে নামিয়ে আনার জন্য ব্যাংকারদের প্রয়োজনীয় উদ্যোগ নেওয়ার নির্দেশ দেন।




রিলেটেড নিউজ:


গুরুত্বপূর্ণ সংবাদ:




 শীর্ষ খবর

কমলনগর সরকারি উপকুল ডিগ্রী কলেজের সবুজ বাংলাদেশের কমিটি গঠন -বিডি টাইমস

জবিতে ‘মুক্তমঞ্চ’ নির্মানের প্রস্তাবণা

‘সুপ্ত প্রতিভা বিকশিত হোক লেখনীর ধারায়’

আবরার হত্যার প্রতিবাদে উত্তাল জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়

জবির মানবিক বিভাগের ভর্তিপরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ

তাইওয়ানের হাত থেকে কিরিবাতি কেড়ে নিলো চীন

ফিফা র‌্যাঙ্কিংয়ে শীর্ষে রেড ডেভিলরা, বাংলাদেশ ১৮৭

দমকা হাওয়াসহ বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা

ভিসির পদত্যাগ দাবিতে বশেমুরবিপ্রবিতে শিক্ষার্থীদের আমরণ অনশন

লালপুরে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে পিকআপ খাদে, চালক নিহত

লালপুরে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে পিকআপ খাদে, চালক নিহত

খালেদ মাহমুদকে যুবলীগ থেকে বহিষ্কার

শিল্পকর্মে বঙ্গবন্ধু

মোদির সেই রমরমা আর নেই

প্রশাসন ‘ম্যানেজ করে’ ক্যাসিনো চালাতেন খালেদ




বার্তা প্রধান: রেহমান কামাল
৩০১,ড.নবাব আলী টাওয়ার (৩য় তলা)
পুরানা পল্টন,ঢাকা-১০০০ ,বাংলাদেশ ।


ফোন :  02-7176978  মোবা:  01732-706938
Email :  editor.bdtimes@gmail.com


All Rights Reserved © bd-times.com

This site is developed by -khalid (emdad01557html5css3@gmail.com).

আদায় অযোগ্য ৮৪% খেলাপি ঋণ